৫ জনের স’ঙ্গে বিয়ে, বাসর রাতে কি’শোরী স্ত্রীর কাণ্ড

একজনের স্ত্রী’ হয়েই শ্বশুর বাড়ি গিয়েছিলেন ওই তরুণী। কিন্তু, শ্বা’শুড়ির ইচ্ছেতেই স্বা’মীর চারভাইকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। ছে’লে বাড়িতে নতুন বৌকে নিয়ে গেলে অন্ধ মা আদেশ করেন, ‘যা এনেছ বাবা, পাঁচভাই মিলে ভাগ করে নাও।’ ছে’লে মায়ের কথায় অনেক ক’ষ্ট পান।কিন্তু, মায়ের আদেশ ফেলতে পারেননি। তাই নিজে’র স্ত্রী’কে সহোদর চারভাইয়ের স’ঙ্গে ও বিয়ে দেন তিনি। এরপর পাঁচভাই এক না’রীর স’ঙ্গে সংসার করেন।

পুরু’ষদের একাধিক স্ত্রী’ থাকার কা’হিনী পুরাণ, ইতিহাস, গল্পে শোনা যায়। কিন্তু মহাভা’রতের দ্রৌপদীই একমাত্র না’রী চরিত্র যার একের বেশি বিয়ে হয়েছিলো। অর্জুনের স্ত্রী’ হয়েই শ্বশুর বাড়িতে যান দ্রৌপদী। আরও পড়ুন : স্বা’মীর স’ঙ্গে কলকাতার একটি পূজা মণ্ডপে গিয়ে মহাষ্টমীর অঞ্জলি দিলেন অভিনেত্রী মিথিলা। এ সময় তার স’ঙ্গে ছিলেন আরেক অভিনেত্রী ও তৃণমূ’ল সং’সদ সদস্য নুসরাত জাহান এবং তার স্বা’মী।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দক্ষিণ কলকাতার সুরুচি সংঘের পূজামণ্ডপে পৌঁছান এ তারকা জুটি; চলচ্চিত্র নির্মাতা সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং তার স্ত্রী মিথিলা।

পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় খয়েরি রঙের পাঞ্জাবি, কালো মাস্ক এবং তার স্ত্রী মিথিলাকে দেখা গেছে গাড় এবং সাদা পাড়ের শাড়ি পরা অবস্থায়, মুখে ছিল সাদা এবং কালো রঙের মাস্ক।

একই সময়ে চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নুসরাতকেউ দেখা গেছে জাম’দানি শাড়ি ও জাম’দানি ডিজাইনের মাস্ক পরে আরতিতে অংশ নিতে। দক্ষিণ কলকাতার অন্যতম জনপ্রিয় এ সুরুচি সংঘের পূজার আয়োজন করেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য স’রকারের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।

মূ’লত টালিগঞ্জের শিল্পীদের স’ঙ্গে অরূপ বিশ্বাস দীর্ঘদিনের সম্প’র্ক থাকায় তার পূজাকে ঘিরে তারকাদের আনাগোনা দেখা যায় বরাবর। এবারও কোভিড বাস্তবতায় এর ব্যতিক্রম হয়নি।

ভয়ানক হতাশা নিয়ে দীঘির স্ট্যাটাস

বেশ কিছুদিন ধরে নানা ধরনের ট্রোল, ব্যঙ্গ, উপহাস আর সমালোচনার শি’কার হতে হচ্ছে ঢালিউডের নবাগত চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘিকে। অথচ তার শো’কেজে সাজানো রয়েছে তিন তিনটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, যেগুলো তিনি শি’শুশিল্পী হিসেবে অর্জন করেছেন। কিন্তু নায়িকা দীঘিকে সেভাবে পর্দায় পায়নি দর্শক। যার কারণে সোশ্যাল মিডিয়াজুড়ে তাকে নিয়ে ট্রোলে মেতেছে সবাই।

শুধু দর্শক নয়, কিছুদিন আগে দীঘিকে ‘দুই পয়সার মে’য়ে’ বলে কটাক্ষ করেছেন তার অভিষেক ছবি ‘তুমি আছো তুমি নেই’-এর পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। তিনি ছবির ট্রেলার নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করেছিলেন বলে।

এই নানামুখী ট্রোল, সমালোচনা আর ভালো লাগছে না দীঘির। এসব নিয়ে তিনি দারুণ হতাশায় ভুগছেন। যেটা বুধবার রাতে তিনি প্রকাশ করেছেন তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টের মাধ্যমে।

সম্প’র্কিত খবর ইংরেজিতে দেওয়া লম্বা ওই পোস্টে দীঘি লিখেছেন, ‘আমি কারও মনোযোগ পাওয়ার জন্য এই লেখাটা লিখছি না। কেবল আমার মনের অবস্থা ভাগাভাগি করে নিচ্ছি আপনাদের স’ঙ্গে। আজ আমি আমার মা’নসিক অবস্থা নিয়ে কথা বলব। হতাশা! শব্দটা শুনে আপনার যেমন লাগছে, এই শব্দটা ততটাই হতাশার।

About tanvir

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *