শিক্ষকতা ছেড়ে দে’হ ব্য’বসায় ঘন্টায় ৩০ হাজার টাকা

অর্থ যেন ন’ষ্টের মূ’ল! অর্থের বিনিময়ে মানুষ কতটা চ’রিত্রহীন তা ভাবতেই অবাক লাগে! একজন শিক্ষিকা সমাজের প্রতিষ্ঠিত না’রী। তিনি শিক্ষকতা ছেড়ে বেঁচে নিয়েছে প’তিতাবৃত্তি। চাইলে স্কুলে শিক্ষকতা করতে পারেন তিনি। তবে শিক্ষকতার চেয়ে এটা হয়ে থাকা’টাই তার কাছে উচ্চ বিলাসী মনে হচ্ছে।

আশ্চর্যের বি’ষয় হলো, অবিবা’হিত মেয়ে হয়েও বর্তমানে চার স’ন্তানের মা। ইংল্যান্ডের নটিংহামে বসবাস করেন ৩৪ বছর ব’য়সী ভিক্টোরিয়া। নামিদামি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। আরও পড়ুন : গত কয়দিন ধরে খুশির জোয়ার বইছে। খুশিতে আমি কেঁদে ভাসিয়েছি।

বৈশাখী টিভি যে কাজটি করেছে, এতে করে রুপান্তরিত না’রী-পুরু’ষরা তাদের সক্ষ’মতা অনুযায়ী কাজ করার সুযোগ পাবে। কথাগুলো বলছিলেন ট্রান্সজেন্ডার তাসনুভা আনান শিশির। যিনি দেশের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার হিসেবে টেলিভিশন চ্যানেলে খবর পাঠ করেছেন।

স্বাধীনতার মাস মার্চ ও সূবর্ণজয়ন্তীর বছরে বৈশাখী টেলিভিশনের ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ সবার নজর কে’ড়েছে। স্বাধীনতার ৫০ বছরে প্রথমবারের মতো সংবাদ পাঠ করেন ট্রান্সজেন্ডার না’রী তাসনুভা আনান শিশির। ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক না’রী দিবসে প্রথম সংবাদ বু’লেটিন উপস্থাপন করেন তিনি দুপুর ১২টায় এবং দ্বিতীয়টি বিকাল ৪টায় উপস্থাপন করার কথা।

বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম ট্রান্সজেন্ডার সংবাদপাঠক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরুর অনুভূতি জানাতে তাসনুভা বলেন, এ অনুভূতি আসলে বলে বোঝানো সম্ভব নয়। বাংলাদেশে একটি নতুন মাত্রা তৈরি হলো।

নতুনভাবে একটি কমিউনিটির মানুষদের সম্মান করা হলো। আরও পড়ুন : দীর্ঘদিন মুঠোফোনে কথাবার্তা বলার পর এক তরুণীকে কুয়াকা’টায় নিয়ে যায় আল আমিন নামের এক যুবক। দুজন সারারাত একস’ঙ্গে কা’টিয়ে সকালে অ’ভিযো’গ উঠেছে ধ’ ‘র্ষ ‘ণের।শনিবার রাতে পটুয়াখালির কুয়াকা’টায় সোনার বাংলা আবাসিক হোটেলে এ ঘ’টনা ঘটে।

আরও পড়ুন : অনেক প্রত্যাশা নিয়ে মানুষ ঘর বাঁধে। সেই ঘরে থাকবে প্রেম, বিশ্বাস, আন্তরিক বোঝাপড়া, আমৃ’ত্যু পাশাপাশি থেকে যাওয়ার টান, এমনটাই চান সব দম্পতি। তবুও সেই প্রত্যাশা-চাওয়ার পালে মন্দ বাতাস লাগে। র’ক্তাক্ত হয় বিশ্বাসের মানচিত্র। ভে’ঙে যায় অনেক আবেগে বাঁ’ধা ঘর।

চারপাশের মানুষেরা সেই ঘর ভাঙার বেদনা দেখে না। অনুভব করে না যে দুটি হৃদয় ভালোবেসে একে অপরকে আঁকড়ে ধরেছিল সে দুটি হৃদয় বিচ্ছেদে কতোটা ক্ষ’ত-বিক্ষ’ত হয়! সেই অনুভূতিকে পাশ কাটিয়ে সবাই মেতে ওঠে ঘর ভাঙার সমালোচনায়।

তেমনি সমালোচনার মুখে রয়েছেন কলকাতার সিনেমার নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। গেল কয়েক মাস ধরে পশ্চিমবাংলার গণমাধ্যমগুলোতে গুঞ্জন, ভে’ঙে যাচ্ছে শ্রাবন্তীর সংসার। স্বা’মী রোশন সিংয়ের স’ঙ্গে নাকি তার দূরত্ব বেড়েছে। নায়িকাও অবশ্য এ নিয়ে ‘রা’টি করছেন না।

এদিকে আ’নন্দবাজার ২৮ ডিসেম্বর প্রকাশিক এক প্রতিবেদনে সেই ভাঙনের গুঞ্জনে এবার মি’লনের সুর বাজালো। সেখানে দাবি করা হয়েছে, এই মুহূর্তে শ্রাবন্তী-রোশনের সোশাল মিডিয়া বলছে, স্বা’মীর স’ঙ্গে রাগ-অভিমানের বরফ গলছে শ্রাবন্তীর।নতুন বছরে আবার কি নতুন করে মিলবেন রোশন-শ্রাবন্তী?- এমন প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে কলকাতাভিত্তিক জনপ্রিয় গণমাধ্যমটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শ্রাবন্তীর সংসার জোড়া লাগার সম্ভাবনা অনেকখানিই। সামাজিক পাতায় একের পর এক পোস্ট দিয়ে ফের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন রোশন। বছর শেষে সেই ডাকেই যেন একটু একটু করে সাড়া দিচ্ছেন অভিনেত্রীও। কেমন করে? দিন কয়েক আগের পোস্টে রোশনকে নীরবতার মর্ম বুঝিয়েছেন। রোশন যতখানি সোশাল মিডিয়ায় সরব হয়েছিলেন, তার অভিনেত্রী স্ত্রী ততটাই নীরব।

সবার মধ্যে একা দাঁড়িয়ে থাকা যুবকের ছবি পোস্ট করেন রোশন। তার দিন দুই পরেই প্রয়াত বলিউড স্টার সুশান্ত সিংহ রাজপুতের স’ঙ্গে নিজের ছবি শেয়ার করেন। এই পোস্ট দেখে বি’ষন্ন নেটাগরিকদের মনও।

রোশনের এই পোস্টগু’লি কি ছুঁয়ে গিয়েছে শ্রাবন্তীকেও? রবিবাসরীয় সন্ধেয় তিনি গানে গানে আশ্বস্ত করেছেন রোশনকে? ব্যাকগ্রাউন্ডে বেজেছে ‘ম্যায় খিলাড়ি তু আনাড়ি’র ‘চুরাকে দিল মেরা’ গান। সেই গানের বিশেষ অংশে লিপ সিঙ্কিং করেছেন অভিনেত্রী, ‘নেহি বেওয়াফা তুম ইয়ে মুঝকো খবর হ্যায়, বদলতি রুতমে মগর মুঝকো ডর হ্যায়’।

অর্থাৎ, রোশনের প্রতি ভালবাসা, আস্থা একেবারে হা’রিয়ে ফে’লেননি শ্রাবন্তী! পাশাপাশি, গানের এই বিশেষ অংশ বেছে নেওয়া, তাতে লিপ সিঙ্কিং এবং শ্রাবন্তীর অভিব্যক্তি; সব মিলিয়ে ইতিবাচক কিছুই খুঁজে পাচ্ছেন নেটাগরিকেরা। ২০২১ মধুমাস হয়ে ফিরুক তারকা দম্পতির জীবনে, অনুরাগীদের এখন এটাই আন্তরিক চাওয়া- দাবি আ’নন্দবাজারের।

About tanvir

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *