Breaking News

ক্লাস রুমের মধ্যেই স’হবাসে লি’প্ত ছাত্র-ছাত্রী

ক্লাসরুমের মধ্যে ছাত্র-ছাত্রী অশ্লি’ল অবস্থায় ছিল। সেই মুহুর্তে ভিডিও করছিল ক্লাসের কয়েকজন। পরে কে বা কারা ভিডিওটি ছড়িয়ে দেয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এরপর তা ভাইরাল হতেই শোরগোল পড়ে যায় ওই স্কুলে। ঘ’টনাটি ঘটেছে ভারতের মগরার একটি স্কুলে। ইটিভি ভারত নামের গণমাধ্যমে প্রকাশ পাওয়া সংবাদে আরও বলা হয়েছে, দুই ছাত্র-ছাত্রী ঘনিষ্ঠ অবস্থায় রয়েছে।

সেই দৃশ্য ভিডিও করছে আরো কয়েকজন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওটি ভাইরা’ল হতে সময় লাগেনি। একপর্যায়ে অন্য শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদেরও চোখে পড়ে তা।

অভিভাবকরা একজোট হয়ে স্কুলের সামনে বি’ক্ষো’ভ করেন। অ’ভিযুক্ত ছাত্র-ছাত্রীকে ব’হিষ্কার করারও দাবি তোলা হয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষক জানান, ওই দুই শিক্ষার্থীকে এরইমধ্যে ব’হিষ্কার করা হয়েছে। তবে, ভবি’ষ্যতের কথা ভেবে কেবল টেস্ট পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে তাদের। ক্লাস করতে দেওয়া হবে না।

প্রধান শিক্ষক বলেন, আমাদের স্কুল যথেষ্ট ঐতিহ্যবাহী। ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ মানা যায় না। প্রত্যেক ক্লাসরুমের বাইরে সিসিটিভি আছে। এবার আমরা ক্লাসরুমের ভে’তরেও সিসিটিভি লাগানোর ব্যবস্থা করব।

স্কুলে মোবাইল ব্যবহার নি’ষিদ্ধ করা হয়েছে এবং কেউ মোবাইল নিয়ে ধরা পড়লে তার বি’রুদ্ধে ক’ঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরাও এই ঘ’টনায় উ’দ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তাঁদের কথায়, আমরাও পড়াশোনা করেছি। আমাদের ছেলে-মে’য়েরাও পড়ছে। এই ধরনের ঘ’টনা সামনে আসায় চমকে যাচ্ছি। স্কুল কর্তৃপক্ষকে আরো ক’ঠোর হতে হবে।

আরও পড়ুন : ১০ টাকায় বিরিয়ানি! কী’’ভাবে সম্ভব? মাত্র ১০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে ডিমসহ পুরো এক প্লেট বিরিয়ানি।ট্রল পেইজগুলো বলছে- দেশে নাকি ১০ টাকার বিরিয়ানি চলে? ১০ টাকার বিরিয়ানি দিবি কি-না বল?

১০ টাকার বিরিয়ানি কি জীবনের সবকিছু? ১০ টাকার বিরিয়ানি না খেলে জীবন বৃথা হয়ে যেত?ফেসবুকের মাধ্যমেই জানা গেল, ১০ টাকার বিরিয়ানি র’হস্য। পুরান ঢাকার ওয়ারিতে বনগ্রাম ম’সজিদের নিচে পাওয়া যায় এ বিরিয়ানি। উদ্যোক্তার নাম- তানভীর। সবার কাছে তিনি ‘তানভীর ভাই’ নামে পরিচিত।

ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নয়, পুরান ঢাকার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এবং দরিদ্র শি’শুদের জন্যই তার এ উদ্যোগ। প্রধান ক্রেতা হচ্ছেন, আশপাশের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কর্ম’রত শ্র’মিকরা। তবে বিরিয়ানির প্রকৃত দাম ৩৫ টাকা।প্রশ্ন হচ্ছে, তিনি কী’’ভাবে ১০ টাকায় বিরিয়ানি দিচ্ছেন? পোলাও এর চাল ও মুরগী আসল কি-না?

১০ টাকার এ বিরিয়ানি কি স্বাস্থ্যসম্মত? উত্তরও মিলেছে। পুরান ঢাকার কাপ্তান বাজার ঘুরে কম’দামে পোলাও এর পুরনো চাল এবং মুরগির ‘ছাট’কা’ (রোস্টের অংশ নেওয়ার পর যা বাকি থাকে) সংগ্রহ করেন তানভীর। এসব দিয়েই তৈরি হয় বিরিয়ানি।

ফেসবুকে শরিফুল ইস’লাম রনি লিখেছেন, কারো যদি ১০ টাকা দেয়ার সাম’র্থ নাও থাকে তাহলেও তানভীর তার হাতে বিরিয়ানি তুলে দেন। কোনো শি’শুর হাত থেকে যদি বিরিয়ানির প্লেট পড়ে যায় তাহলে তার হাতে নতুন প্লেটে বিরিয়ানি তুলে দেন তানভীর।

ওয়ারি এলাকার কর্মজীবী তরুণ রেজু’য়ার রহমান বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে এখানে বিরিয়ানি বিক্রি হতে দেখছি। বিকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিরিয়ানি পাওয়া যায়। সবসময়ই ভিড় থাকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ফেসবুকে এ ১০ টাকার বিরিয়ানি নিয়ে অনেক সমালোচনা দেখছি। আমা’র মনে হয় সমালোচনার করার আগে এখানে এসে বিরিয়ানি খেয়ে যাওয়া উচিত।

About admin

Check Also

পেট চা’লানোর জন্য বিক্রি করেছেন বাড়ির ভিটা, তবুও ব’য়স্কভাতা কার্ড পাননি ৯৮ বছরের বৃ’দ্ধা

আমেনা বেগমের (৯৮) ব’য়স একশ ছুঁইছুঁই। এই ব’য়সে তিনি কানে একেবারেই শুনতে পান না। চোখে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *