স্বা’মীর পু’রু’ষা’ঙ্গ ছোট হওয়ায় নতুন বউয়ের কাণ্ড

ম’হিলার নাম কিংবা পরিচয় জানা যায়নি। নিজের স্বা’মীর পরিচয় সম্প’র্কেও কিছু খোলসা করেননি তিনি। ৬ মাসের প্রেম। তার পরে বিয়ে। কিন্তু হানিমুনে যেতেই মাথায় বাজ পড়ল ম’হিলার। স্বা’মী শা’রী’রিক দিতে না পারায় ক্ষো’ভ জানাতে বিচিত্র পন্থা নিলেন গৃহবধূ। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ‘রে’ডিট’-এ এক ম’হিলা একটি পোস্ট করেন। সেখানে তিনি জানান, ৬ মাসের প্রেমের পরে তিনি তাঁর বয়ফ্রেন্ডকে

বিয়ে করেন। কিন্তু হানিমুনে যেতেই তিনি বুঝতে পারেন, তাঁর স্বা’মীর পু’রুষা’ঙ্গ আকারে ছোট। তাঁকে শা’রী’রিক সু’খ দিতে পারবেন না স্বা’মী। ওই ম’হিলার অ’ভিযোগ, বি’য়ের আগে তাঁর স্বা’মী এ বি’ষযে কিছুই জানাননি তাঁকে। এমনকী, বিয়ের আগে যৌ’’ন সম্প’র্কে

লি’প্ত হবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছিলেন তাঁর স্বা’মী। কিন্তু বিয়ের পরে স্বা’মীর গো’পন কথা জানতে পেরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষো’ভ উগড়ে দেন তিনি। ওই ম’হিলার নাম কিংবা পরিচয় জানা যায়নি। নিজের স্বা’মীর পরিচয় সম্প’র্কেও কিছু খোলসা করেননি তিনি। তবে তাঁর অ’ভিযোগ, তাঁর স্বা’মী তাঁকে ঠ’কিয়েছেন।

আরও পড়ুন : ও’ষুধ ছাড়াই পেটের গ্যাস দূর করার উপায়। ও’ষুধ ছাড়াই পেটের গ্যাস-অম্বল দূর করার কার্যকর ঘরোয়া টো’টকা – পেট থেকে গ্যা’স দূর করার ঘরোয়া- গ্যাসের য’ন্ত্রণায় যারা ভোগেন তারাই ভাল জানেনকতটা অস্বিস্তিকর। একটু ভাজাপোড়া অথবা দাওয়াত, পার্টিতে মসলাযু্ক্ত খাবার খেলে তো শুরু হয়ে যায় অস্বস্তিকর গ্যা’সের সমস্যা।

ফাস্ট ফুড, ব্যস্ত জীবনযাত্রার যুগে গ্যা’স, পেটের অসু’খ এখন ঘরোয়া।যে কোনো মানুষের বাসায় গেলেই আর যাই হোক গ্যা’স্ট্রিকের ১ পাতা ও’ষুধ অবশ্যই পাওয়া যায়।তবে কী গাদা গাদা গ্যাসের ও’ষুধে এ সমস্যা দূর হয়!কিন্তু ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যেগুলো প্রয়োগ করলে গ্যাস, বুক জ্বা’লা থেকে সহজেই বাঁচা যায়।

জেনেনেওয়া যাক:শসা:শসা পেট ঠাণ্ডা রাখতে অনেক বেশি কার্যকরী খাদ্য। এতে রয়েছে ফ্লেভানয়েড ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা পেটে গ্যাসের উদ্রেক কমায়। ১. দই: দই আমাদের হজম শ’ক্তি বৃ’দ্ধিতে সহায়তা করে। এতে করে দ্রু’ত খাবার হজম হয়, ফলে পেটে গ্যাসহওয়ার ঝামেলা দূর হয়।

২. পেঁপে: পেঁপেতে রয়েছে পাপায়া নামক এনজাইম যা হজমশ’ক্তি বাড়ায়। নি’য়মিত পেঁপে খাওয়ার অভ্যাস করলেও গ্যাসের সমস্যা কমে। ৩. কলা ও কমলা: কলা ও কমলা পাকস্থলির অতিরিক্ত সোডিয়াম দূর করতে সহায়তা করে। এতে করে গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এ ছাড়াও কলার সলুবল ফাইবারের কারণে কলা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ক্ষ’মতা রাখে। সারাদিনে অন্তত দুটি কলা খান।

পেট পরিষ্কার রাখতে কলার জুড়ি মেলা ভার।৪. আদা: আদা সব চাইতে কার্যকরী অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানসমৃদ্ধ খাবার। পেট ফাঁপা এবং পেটে গ্যাস হলে আদা কুচি করে লবণ দিয়ে কাঁচা খান, দেখবেন গ্যা’সের সমস্যা সমাধান হবে।

৫. ঠাণ্ডা দু’ধ: পাকস্থলির গ্যাসট্রিক এসিডকে নিয়ন্ত্রণ করে অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি দেয় ঠাণ্ডা দু’ধ। এক গ্লাস ঠাণ্ডা দু’ধ পান করলে অ্যাসিডিটি দূরে থাকে। দারুচিনি: হজমের জন্য খুবই ভালো। এক গ্লাস পানিতে আধ চামচ দারুচিনির গুঁড়ো দিয়ে ফুটিয়ে দিনে ২ থেকে ৩ বার খেলে গ্যাস দূরে থাকবে।

৬. জিরা: জিরা পেটের গ্যাস, বমি, পায়খানা, র’ক্তবিকার প্রভৃতিতে অত্যন্ত ফলপ্রদ। জ্বর হলে ৫০ গ্রাম জিরা আখের গুড়ের মধ্যে ভালো করে মিশিয়ে ১০ গ্রাম করে পাঁচ’টি বড়ি তৈরি করতে হবে।দিনে তিনবার এর একটি করে বড়ি খেলে ঘাম দিয়ে জ্বর সেরে যাবে। লবঙ্গ: ২/৩টি লবঙ্গ মুখে দিয়ে চু’ষলে একদিকে বুক জ্বা’লা, বমিবমিভাব, গ্যাস দূর হয়। স’ঙ্গে মুখের দু’র্গ’ন্ধ দূর হয়।

৭.এলাচ: লবঙ্গের মতো এলাচ গুঁড়ো খেলে অম্বল দূরে থাকে।পুদিনা পাতার পানি:এক কাপ পানিতে ৫টা পুদিনা পাতা দিয়ে ফুটিয়ে খান। পেট ফাঁপা, বমিভাব দূরে রাখতে এর বিকল্প নেই।

৮.মৌরির পানি: মৌরি ভিজিয়ে সেই পানি খেলে গ্যাস থাকে না।এ ছাড়াও খাবারে সরষে যোগ করুন:সরষে গ্যাস সারাতে করতে সাহায্য করে। বিভিন্ন খাবারের সাথে সরষে যোগ করা হয় যাতে সেইসব খাবার পেটে গ্যাস সৃষ্টি করতে না পারে। নজর রাখতে হবে নিজের খাওয়া-দাওয়ার প্রতি।জেনে নিতে হবে কোনটি খাওয়া উচিত হবে কোনটি হবে না। নিউজটি শেয়ার করার অনুরোধ রইলো।

About tanvir

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *