ব্যাটিং ব্য’র্থতাকেই দায়ী করলেন মাহমুদউল্লাহ

ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর টি-টোয়েন্টিতে মাহমুদুউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে মাঠে নেমে ভাগ্য পরিবর্তন হয়নি বাংলাদেশের। প্রথম ম্যাচ হারতে হয়েছে ৬৬ রানের বড় ব্যবধানে।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আবারও ব্যাটিং ব্য’র্থতা। টপ অর্ডারের ব্য’র্থতায় শুরুতেই হোঁচট খায় টাইগাররা। তবে আফিফ হোসেন এবং সাইফউদ্দিনের ব্যাটে লজ্জা কিছুটা কাটিয়ে ওঠে বাংলাদেশ। তাদের ব্যাটে ভর করে হারের ব্যবধান কিছুটা কমিয়েছে সফরকারীরা।

২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শেষ পর্যন্ত ১৪৪ রান তুলতে স’ক্ষম হয় বাংলাদেশ। ৬৬ রানে হেরে ম্যাচ শেষে ব্যাটিং ব্য’র্থতাকেই দায়ী করলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলেন, ‘ব্যাটিংয়ে বারবার একই ভু’লের পুনরাবৃত্তির জন্য হারতে হয়েছে ম্যাচ। নিউজিল্যান্ডকে ১৯০-এর মধ্যে বেঁ’ধে রাখলে রান তাড়া করা সম্ভব ছিল। ব্যাটিংয়েই যা সর্বনাশ ডেকে এনেছে বাংলাদেশ। ভু’ল শুধরে দ্বিতীয় ম্যাচে ফিরে আসতে হবে আমাদের।’

হোটেলের বিছানার চাদর-বালিশ সাদা হয় কেন

ঘুরতে গেলে হোটেলে তো থেকেছেন নিশ্চয়ই। সব হোটেলের বিছানার চাদর এবং বালিশের কভা’র সাদা! কখনো খেয়াল করেছেন? মনে হতেই পারে হোটেলের বিছানার চাদর-বালিশ সাদা হয় কেন? নব্বয়ের দশকের শুরুতে ওয়েস্টিন হোটেল গ্রুপ তাদের হোটেলের ঘরগুলোতে সাদা বালিশ, চাদর, তোয়ালের ব্যাপক ব্যবহার শুরু করে। সে সময় ইউরোপ এবং আ’মেরিকার কয়েকটি নামী হোটেলে সাদা চাদর, বালিশ ব্যবহারের চলন ছিল।

তবে ১৯৯০ এর দিকে ওয়েস্টিন এবং শেরাটন হোটেলের ডিজাইন বিভাগের ভাইস প্রে’সিডেন্ট এরিন হুভা’র-ই ওয়েস্টিন হোটেল গ্রুপের ঘরগুলোতে সাদা চাদর, বালিশ ব্যবহারের পরাম’র্শ দেন।

এ ক্ষেত্রে কয়েকটি যু’ক্তিও দিয়েছিলেন হুভা’র।এরিন হুভা’র এর যু’ক্তি ছিল, সাদা চাদর, বালিশ হোটেলের অ’তিথিদের মনে পরিচ্ছন্নতার অনুভূতি তৈরি করে। এনে দেয় মা’নসিক তৃ’প্তি।

এরিন হুভা’রের যু’ক্তি মেনে এই পদ্ধতির ব্যবহারের ফলে ওয়েস্টিনের হোটেলগুলোর ব্যবসা অনেকটাই বেড়েও যায়। অ’তিথিদের পছন্দের হোটেলের তালিকার জায়গা করে নেয় ওয়েস্টিনের হোটেলগুলো।

পরবর্তীকালে প্রায় সকলেই এই পন্থা অনুসরণ করতে শুরু করেন।সাদা রং অনেক বেশি আলোর প্রতিফলন ঘটায়। তাই সাদা চাদর, বালিশ, পর্দা ব্যবহারের ফলে হোটলের ঘরগুলো আরও উজ্জ্বল বলে মনে হয়।

তাছাড়া সাদা চাদর, বালিশ, পর্দা ময়লা হলে সবকটি এক স’ঙ্গেই ধুয়ে নেওয়া যায়।অন্যান্য যে কোনও রঙের ক্ষেত্রে এক রঙের কাপড়ের থেকে আরেকটায় রং লেগে যাওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়।

এছাড়া সাদা রঙ যে দেখতেও ভাল লাগে তা আর বলার অ’পেক্ষা রাখে না। এরিন হুভা’রের এমন যু’ক্তিও গ্রহণযোগ্য হয়ে ওঠে সকলের কাছে। হোটলের ঘরগুলোর দেওয়ালের রং ঘন ঘন পাল্টানো সম্ভব নয়।

ঘরের দেওয়ালের রঙের স’ঙ্গে বিছানার চাদর, বালিশ বা পর্দার রং না মিললে দেখতেও ভাল লাগে না। তাছাড়া ঘন ঘন মানানসই রঙের চাদর, বালিশ আর পর্দা পাওয়া মু’সকিল।

তাই সাদা রঙের চাদর, বালিশ বা পর্দার ব্যবহারে এই সমস্যাগুলোর সমাধান হতে পারে অনায়াসে।‘ব্যতিক্রমী কিছু সৃষ্টি করতে চাইলে, খুঁটিনাটি বি’ষয়েও নিখুঁত পর্যবেক্ষণ জরুরি’ – এই মতাদর্শকেই সামনে রেখে এরিন হুভা’রের এই পদক্ষেপ হোটেল ব্যবসায় আমূ’ল পরিবর্তন এনে দেয়।সামান্য চাদর, বালিশের রং হোটেল ব্যবসার ক্ষেত্রে বা হোটেলের অ’তিথিদের ভাবনা চিন্তায় কতটা প্রভাবিত করতে পারে তা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন হুভা’র।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে শতাধিক নামী হোটেলে এমনই আরও নানা খুঁটিনাটি বি’ষয় মা’থায় রেখে ব্যবহার করা হয় সাদা রঙের চাদর, বালিশ। তবে এরিন হুভা’রের যু’ক্তি বা ব্যাখ্যাগুলোই সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য।

About tanvir

Check Also

এবার আইপিএল বাদ দিয়ে দেশে সিরিজ খেলবেন সাকিব!

দেশে সিরিজ খেলবেন সাকিব-আসন্ন নিউ জিল্যান্ড সফর থেকে স্ত্রীর পাশে থাকতে মার্চে ছুটি নিয়েছেন সাকিব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *