পুরু’ষরা যেসকল কারনে প’রকীয়ায় জ’ড়িয়ে পরে, সকল না’রীরই জা’না দরকার

প’রকীয়া শব্দটি এখন অতিপরিচিত। প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললেই অহরহ শোনা যায় প’রকীয়ার ঘ’টনা।প’রকীয়ার জন্য ভে’ঙে যাচ্ছে সংসার, খু’ন হচ্ছে স’ন্তান। তবে অনেকে জানতে চায় কেন এই প’রকীয়া।প’রকীয়ার জন্য দায়ী কোন বি’ষয়গুলো দায়ী। নাকি স’ম্পূর্ণ মনের ব্যাপার এটি।আ’সলে কী কারণে প’রকীয়ার জড়ায় পুরু’ষ।

প’রকীয়া কি? পরকীয়া হলো বিবা’হিত কোনো ব্য’ক্তির (না’রী বা পুরু’ষ) স্বা’মী বা স্ত্রী ছাড়া অন্য কোনো ব্য’ক্তির স’ঙ্গে বিবাহোত্তর বা বিবাহবহির্ভূত প্রেম, শা’রীরিক স’স্পর্ক। মানবসমাজে এটি লঘু বা গুরুভাবে নেতিবাচক হিসেবে গণ্য।

তবে ইসলামি রাষ্ট্রসমূহে এর জন্য ক’ঠোর শা’স্তির বিধান রয়েছে, যা হলো পাথর নি’ক্ষেপ করে মৃ’ত্যুদ’ণ্ড প্রদান। মনোচিকিৎ’সায় এ কথা স্বীকৃত যে, বাবা-মা’র পরকীয়া স’ন্তানের মা’নসিক স্বা’স্থ্যের ও’পর এবং সামাজিক স’স্পর্ক ও

যোগাযোগে বিরূপ প্র’ভাব ফে’লে এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা স’ন্তানের মা’নসিক বি’ষণ্ণতার ও আগ্রাসী মনোভাবের জ’ন্ম দেয়। এছাড়া পারিবারিক ও দাম্পত্য স’স্পর্কের অবনতিতে পরকীয়া প্র’ভাব রাখে। আসুন জে’নে নেই কেন প’রকীয়ার জড়ায় পুরু’ষঃ

পারিবারিক ক’লহ – পারিবারিক ক’লহের কারণে অনেক সময় পুরু’ষ প’রকীয়ায় জড়ায়।সংসারজীবন সব সময় মধুময় হয় না। ঝ’গড়া থেকে শুরু করে গায়ে হাত তোলার ঘ’টনা ঘ’টে। তাই স্ত্রীর স’ঙ্গে যখন স’স্পর্কের অবনতি ঘ’টে তখন বেশির ভাগ পুরু’ষ অন্য জায়গায় আশ্রয় খোঁ’জে এবং প’রকীয়ার জড়ায়।

একঘেয়ে স’ম্পর্ক – পৃথিবীতে বেশির ভাগ মানুষই প্রেম বা বিয়ের স’ম্পর্ককে বেশিদিন আঁ’কড়ে ধ’রে রাখতে পারেন না। জীবনভর একই ছাদের নিচে থাকেন বটে, তবে সংসারের নিয়মে। সংসার নামক ব’ন্দিজীবনে একটুখানি বৈ’চিত্র্যের ছোঁয়া পেতে অনেক পুরু’ষরা আকৃ’ষ্ট হন অন্য না’রীদের প্রতি।

অপূর্ণ প্র’ত্যাশা ও আ’কর্ষণ হা’রিয়ে ফেলা – স’ঙ্গীর কাছ থেকে অনেক কিছু প্রত্যা’শা থাকে না’রীর। অনেক আশা করে বিয়ে ক’রেছেন, কিন্তু সেই আশা পূরণ হয়নি। এমন ক্ষেত্রে পুরু’ষরা শুরু করেন নতুনের খোঁ’জ। অনেকেই নিজে’র স’ঙ্গীর প্রতি আক’র্ষণ হা’রিয়ে ফে’লে । প্রতিদিন একই চে’হারা, একই আ’চরণ মনে হতে থাকে। তাই অন্য না’রীর দিকে নজর চলে যায়।

মনোদৈ’হিক ও সামাজিক কারণ- মনোদৈ’হিক ও সামাজিক কারণে মানুষ প’রকীয়ায় জড়ায়। প্রথমে আসে দৈ’হিক বি’ষয়। স্বা’মী-স্ত্রীর মধ্যে যৌ’ন স’ম্পর্কে অতৃ’প্তি থেকে অনেকে এ স’ম্পর্কে জড়ায়। শা’রীরিক স’স্পর্ক মানুষের একটি শা’রীরবৃত্তীয় চা’হিদা। যদি স্বা’মী-স্ত্রীর যৌ’নজীবন দু’র্বল হয়, তাহলে অপর ব্য’ক্তির প্রতি আস’ক্তি তৈরি হতে পারে।

মা’নসিক স’মস্যা – মা’নসিক স’মস্যার কারণেও মানুষ প’রকীয়ায় জড়াতে পারে। যাদের মধ্যে বাইপোলার মুড ডিজঅর্ডার আছে, তাদের প’রকীয়ার স’স্পর্কে জড়ানোর প্র’বণতা দেখা যায়। তারা কোনো কিছুর মধ্যে স্থিরতা খুঁজে পায় না।

স’ঙ্গীর উদাসীনতা – স’ঙ্গীর উদাসীনতা ও দূ’রত্বের কারণেও অনেক সময় মানুষ প’রকীয়ায় জড়িয়ে প’ড়ে জা’নিয়ে তিনি বলেন, অনেক সময় স্বা’মী-স্ত্রী বাস্তবতার কারণে, কাজে’র কারণে হয়তো দূ’রে চলে যায়। তখন তাদের মধ্যে প’রকীয়ার আ’গ্রহ বাড়ে।

শখ থেকে প’রকীয়া – অনেকে শখ থেকেও প’রকীয়ায় জড়ায়। অন্য আরেকটি শ’রীর কেমন, একে জা’নার একটি আ’গ্রহ থাকে। অনেকে আবার ভাবে, ‘ওরা কি সু’খী! এই মানুষটির স’ঙ্গে থাকতে পারলে হয়তো আমা’র অনেক সু’খ লাগত।’ এ থেকেও অনেকে ওই ব্য’ক্তির প্রতি আ’গ্রহ অ’নুভব করে।

দূ’রত্ব ও শূন্যতা – স্বা’মী-স্ত্রীর মধ্যে যখন শূন্যতা তৈরি হয়, তখন আরেকজন সেখানে প্রবেশ করে। হয়তো স্বা’মী বা স্ত্রীর আর আগের মতো করে কথা বলে না বা আদর করে না। যত্ন কম নেয়। এই বি’ষয়গুলোর কারণে অন্যের প্রতি আসক্তি তৈরি হয়।

স্ত্রী দূ’রে গেলে – স্ত্রী দূ’রে থাকলেও এ স’মস্যা হতে পারে। শুধু যৌ’নতায় অংশগ্রহণ নয়, কথা’বা র্তায়ও বি’ষয়টি থাকতে হয়। তখন যদি অন্য কেউ সেই কথাগুলো শোনায়, তাহলে তার প্রতি আ’গ্রহ কাজ করে।

স’ন্তান হওয়ার পর – স’ন্তান হওয়ার পর অনেক মে’য়ে স্থূল হয়ে যায়। এতে স্ত্রীর প্রতি আ’গ্রহ কমে যেতে পারে। আবার না’রীর বেলায়ও অনেকে হয়তো খুব হ্যান্ডসাম ছেলে পছন্দ করে, যা হয়তো তার স্বা’মীর স’ঙ্গে মেলে না। তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মা’নসিক ও শা’রীরিক প্রয়োজন মেটানোর বি’ষয়টিই এখানে মুখ্য হয়। এসব ভাবনা ব্য’ক্তিকে প’রকীয়ার প্রতি আকৃ’ষ্ট করে তোলে।

About tanvir

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *