Breaking News

শি’শু ধর্ষণ মা’মলায় ১২ বছর পর আ’সামির যাবজ্জীবন

রংপুরের মধ্য বিন্নাটারিতে ১২ বছর আগে সংঘটিত একটি শি’শু ধর্ষণ মা’মলার আ’সামি আইনুল হককে যাবজ্জীবন কা’রাদ’ণ্ড ও ২৫ হাজার টাকার অর্থদ’ণ্ড দিয়েছেন আ’দালত।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে এ রায় দেন না’রী ও শি’শু নি’র্যাতন দ’মন আ’দালতের বিচারক জাবিদ হোসেন।

মা’মলার বিবরণে জানা যায়, আ’সামি আইনুল হক ২০০৯ সালের ১ মার্চ শি’শুটিকে একটি বাঁশঝাড়ে নিয়ে ধর্ষণ করে। পাশবিক নি’র্যাতনের কারণে শি’শুটি মা’রাত্মকভাবে আ’হত হয়। র’ক্তাক্ত অবস্থায় উ’দ্ধার করে শি’শুটিকে রংপুর মেডিকেলে ভর্তি করে এলাকাবাসী। লোমহর্ষক এই ঘ’টনায় ৮ জন আ’দালতে সাক্ষ্য দেন।

এদিকে মা’মলার যাবতীয় কার্যক্রম শেষে আ’দালতের দেওয়া রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন বা’দীপক্ষের আইনজীবী।

পৈতৃক সম্পত্তি বিক্রির টাকা মসজিদে দিলেন প্রতিব’ন্ধী আইয়ুব আলী

মাদারীপুরের রাজৈর উপজে’লার পশ্চিম রাজৈর মধ্যপাড়া গ্রামের মৃ’ত রত্তন খাঁ’র প্রথম পক্ষের একমাত্র ছেলে আইয়ুব আলী খাঁ (৬০) ওরফে পাগ’লা আয়োব। জ’ন্মসূত্রে শা’রীরিক প্রতিব’ন্ধী।

তার আপন বলতে তেমন কেউ নেই। এ জন্য পৈতৃক সম্পত্তি বিক্রি করা ৪৮ হাজার টাকা দাদা-দাদি ও বাবা-মায়ের নামে নিজ গ্রামের মসজিদে দান করে দেন তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১০ বছর ব’য়সে মা মা’রা যাওয়ার পর আইয়ুবের বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেন। বাবা বাড়িতে না থাকলেই আইয়ুবের ও’পর নি’র্মম অ’ত্যাচার করত সৎমা।

পরে বাড়ি থেকে বের করে দিলে কখনো রাস্তায় আবার কখনো প্রতিবেশীদের রান্না ঘরে থাকত সে (আয়োব)। একপর্যায়ে একই এলাকার চাচাতো বোন কোমেলা বেগম আইয়ুবকে ছোট একটি হাঁসের ঘরে থাকতে দেয়।

এভাবেই তার জীবন কাটছিল। হঠাৎ পশ্চিম রাজৈর মধ্যপাড়ার মসজিদটি ভে’ঙে উন্নয়ন কাজ শুরু হয়। এ খবর পেয়ে আইয়ুব আলী তার আশ্রয়দাতা কোমেলা বেগমকে নিজের পৈতৃক সম্পত্তির ভাগের অংশ বিক্রির কথা বলেন।

পরে আশ্রয়দাতা চাচাতো বোনের ছেলেসহ এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পৈতৃক সম্পত্তির ভাগের অংশ বিক্রি করা ৪৮ হাজার টাকা মসজিদে দান করেন।

কোমেলা বেগম জানান, আইয়ুব আমাকে প্রায়ই বলত, আমার বাবার সম্পত্তি আমি যতটুকু পাব সেটা আমাকে বিক্রি করে দাও। এটা আমি মসজিদে দেব। আমার সম্পত্তি থাকলে খাবে কে? আইয়ুব আলী জানান, আমার টাকার দরকার নাই। আমি আমার বাবা-মা এবং দাদা-দাদির নামে মসজিদে দান করেছি। আল্লাহ আমাকে দেখবে।

মসজিদের ইমাম জানান, তিনি একজন অ’সহায় শা’রীরিক প্রতিব’ন্ধী ব্যক্তি হয়েও মৃ’ত বাবা-মায়ের জন্য অনেক বড় দান করেছেন। বৃত্তবানরাও যা খুব কম করে। প্রতিটি স’ন্তানেরই কর্তব্য বাবা-মায়ের হক আদায় করা।

About admin

Check Also

যুক্তরাষ্ট্রে ৬০ লাখ ডলার রেখে গেছেন ‘পাঠাও’র ফাহিম সালেহ

বাংলাদেশের রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ যুক্তরাষ্ট্রে ৬০ লাখ ডলার রেখে গেছেন। নিউইয়র্কের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *