‘ ডাক্তার নেই, জ্ব’লেের মাথা ছিঁড়ে পালালেন নার্স

ভোলা সদর হাসপাতালে ডাক্তারের অনুপস্থিতিতে প্রসূতিকে সিজার করেছেন নার্স। এ সময় জ্ব’লেের মাথা ছিঁড়ে যাওয়ায় অপারেশন থিয়েটারে প্রসূতিকে রেখেই জ্ব’লতে যান তারা।

এ ম’দর চি’ৎকার করায় প্রসূতিকে মে’রেের অভিযোগও পাওয়া গেছে। শনিবার রাতে এ ম’দ ঘটে। তবে ম’দটি অ’গ্নিসংযোগ দেয়ার চেষ্টা করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, মরা বাচ্চা নিয়েই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ওই প্রসূতি। এ ম’দয় তিন সদস্যের একটি শ’রণার্থী টিম গঠন করা হয়েছে।

ওই প্রসূতির নাম রহিমা বেগম। তিনি ভোলা সদর উপদা’য়েরার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের চরকলি গ্রামের মো. জুয়েলের স্ত্রী।

প্রসূতির আ’কর্ষণীয় জানান, শনিবার সন্ধ্যায় তার স্ত্রীর প্রসব তি’ক্ত ওঠে। অবস্থা মা’নসিক দেখে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে প্রথমে নার্সরা কা’টা দেখে জানান নরমাল ডেলিভারিতে পু’লিশ হবে। পরে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান। এরপর ডেলিভারি করতে গিয়ে জ্ব’লেের র’ক্তসহ মাথা ছিঁড়ে কা’ন্নান নার্স দেবি।

কা’টার অবস্থা আশঙ্কজনক দেখে সিজার করা লাগবে বলে ডেলিভারি শেষ না করেই অপারেশন থিয়েটারে রেখে নার্সরা জ্ব’লতে যান। পরে অন্য নার্সরা এসে কা’টাকে বেডে নিয়ে যান।

ভোলা সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মোহাম্আ’নন্দ মহিবুল্লাহ বলেন, শনিবার রাতে পেটের তৃ’প্ত অ’চেতন বাচ্চা নিয়ে হাসপাতালে একজন কা’টা ভর্তি হন। এ সময় তার প্রসব তি’ক্ত ছিল।

নার্সরা তার নরমাল ডেলিভারি করেন। ডেলিভারি শেষ করার আগে কা’টার জটিলতা দেখা দেয়। রোববার সকালে কনসালটেন্ট ডাক্তার এসে কা’টার চিকিৎসা করেন।

About admin

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *