সারাদিন রো’গী দেখে হঠাৎ হাসপাতালে ভর্তি ডাক্তার, অবশেষে মৃ’ত্যু

দেশে আবারো ক’রোনা ভাই’রাসের দাপট দেখা দিয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন নতুন করে অসংখ্য মানুষ ক’রোনা ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হচ্ছে একই স’ঙ্গে প্রা’ণ যাওয়ার সংখ্যাও বাড়ছে।

এমনকি অনেক চিকিৎসক রো’গীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে ক’রোনা ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হচ্ছেন। তেমনি এবার এক ডাক্তার সারাদিন রো’গী দেখে হঠাৎ হাসপাতালে ভর্তি হয়। তবে তিনি আর সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। জানা গেছে তিনি ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেছেন।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুই ক’রোনা রো’গীর ’’মৃ’’ত্যু’’ হয়েছে। এদের মধ্যে একজন চিকিৎসক। অন্যজন গৃহীনি। শনিবার রাতে তারা ’’মা’’রা’’ যান।

মা’রা যাওয়া চিকিৎসকের নাম আবদুল হান্নান (৪৬)। তিনি রামেকের সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। ডা. হান্নান রামেক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন।

অন্যদিকে রাতে হাসপাতালের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাহিদা বেগম (৪৫) নামে আরেক না’রীর ’’মৃ’’ত্যু’’ হয়। তার বাড়ি নওগাঁ সদরের চক এনায়েতপুর গ্রামে। গত ৪ মার্চ থেকে তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। শনিবার রাত ১টা ৪৫ মিনিটে তার ’’মৃ’’ত্যু’’ হয়।

হাসপাতাল সূত্র ক’রোনায় তার ’’মৃ’’ত্যু’’র’’ বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছে।

আইসিইউ’র ই’নচার্জ ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল চিকিৎসকের ’’মৃ’’ত্যু’’র’’ বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, শনিবার রাত ১১টা ২০ মিনিটের দিকে ডা. আবদুল হান্নান ’’মা’’রা’’ গেছেন। শুক্রবার রাত থেকে তিনি লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

রামেকের অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলী জানান, গত মঙ্গলবার হঠাৎ ডা. আবদুল হান্নানের ’’শ্বা’’স’’ক’’ষ্ট’’ দেখা দেয় এবং তিনি অ’সুস্থ হয়ে পড়েন। ওই দিন রাতেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগে সারাদিনই তিনি রো’গী দেখেছেন। কোন সমস্যা ছিল না। হঠাৎ অ’সুস্থ হয়েই অবস্থা খা’রাপ পর্যায়ে চলে যায়। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তার ফু’’স’’ফু’’স ক্ষ’তিগ্রস্ত হয়েছে।

এর পরদিন নমুনা পরীক্ষা করে তার ক’রোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ডা. নওশাদ আলী আরও বলেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য আমরা এয়ার এম্বুলেন্সে ডা. হান্নানকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছি।

কিন্তু অবস্থা জটিল হওয়ায় এয়ারে নেওয়া সম্ভব হয়নি। ডা. হান্নানকে গু’রু’ত’র অবস্থায় আইসিইউতেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে বাঁ’চা’নো যায়নি।

এদিকে, দেশে গত এক সপ্তাহ ধরে ক’রোনা ভাই’রাসের আ’ক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এমনকি ক’রোনা ভাই’রাসের টিকা নেওয়ার পরও বেশ কয়েকজন ব্যক্তি এই ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হয়েছেন এবং কয়েকজন শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেছেন। আর এই ডাক্তার রো’গীদের চিকিৎসা দিতে দিতে একটা সময় অ’সুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তিনি ক’রোনায় মা’’রা যান।

About tanvir

Check Also

ভো’ট চা’ইতে গিয়ে গ;ণ’ধ;র্ষ;ণে;র শি’কার ম’হিলা প্রা’র্থী

প’টুয়াখালীর মি’র্জাগঞ্জে সংরক্ষিত এক না’রী কা’উ’ন্সিলর প্রার্থীকে (৪৫) গ;ণধ;র্ষ;ণের অ;ভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *