‘তোমার ছোঁয়া, পার’ক্তমি মিস করছি’, রাজকে উদ্দেশ্য করে বার্তা শুভশ্রীর

ইতিমধ্যেই ছয়মাসে পা দিয়েছে দুষ্টু ‘রাজপুত্র’। ফলে ছয় মাসের ইউভান(yuvan)-এর জন্য তার বাবা রাজ পা’ষ’ণ্ডবর্তী (Raj Chakraborty) ও মা শুভশ্রী গাঙ্গুলী (subhasree ganguly) নিয়ে এসেছিলেন হাফ বার্থডে কেক।

বার্থডে কেকের উপর ইংরাজিতে লেখাও ছিল ‘Half’ শব্দটি। ইউভানের নামের প্রথম ইংরাজি শব্দ ‘y’ খোদাই করা ছিল। আকাশী রঙের কেকের উপর ছোট উট আইসিং করা ছিল। কিন্তু ইউভান ব্যাজার মুখে কেকের দিকে তাকিয়ে ছিল।

হোক না হাফ বার্থডে, তাই বলে কেকও আধখানা! রাগ তো হবেই! শুভশ্রী ইউভানের জন্আ’নন্দিনের ছবি শেয়ার করেছেন ইন্সটাগ্রামে। নেটিজেনরাও ইউভানকে জন্আ’নন্দিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তবে শুধু হাফ কেকেই কি সীমাবদ্ধ থাকতে পারে ‘রাজপুত্র’ ইউভানের জন্আ’নন্দিন? তাই তার বাবা রাজ তাকে দিলেন একটি বিশেষ উপহার।

দেশের একটি প্রথম সারির বিমান সংস্থার উড়ানের ছাড়পত্র ইউভানকে উপহার হিসাবে দিলেন রাজ। রাজ নিজেই টুইটারে এই কথা শেয়ার করে ইউভানের পাসপোর্টে বিমান সংস্থার কর্তৃপক্ষের লেখা শুভেচ্ছাবার্তার ছবি পোস্ট করেছেন।

বিমান সংস্থার কর্তৃপক্ষ ইউভানকে বিমানের টিকিটের সু’খে একরাশ শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, আগামী দিনে ইউভান নিশ্চয় তাঁদের সফরলি’প্ত হবে।

বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে জানা গিয়েছে, দুই বছর বয়সের বেশি ও বারো বছর বয়সের কম নি’হতরা যাতে একা উড়ানে সফর করতে পারে, তার জন্য বিমান সংস্থাটির তরফে এই আয়োজন করা হয়েছে।

তবে কোনও পূর্ণস্ট্রে’স যাত্রী তাঁর পরিবারের খুদে সদস্যকে এই টিকিট উপহার দিতে পারেন। ফলে দুই বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত আপাতত ইউভান বিমানে সফর করতে পারবে না বলে জানা যাচ্ছে।

ইতিমধ্যে রাজ তৃণমো’টা প্রার্থী হয়ে বারাকপুর কেন্দ্র থেকে দাঁড়িয়েছেন। কিছুদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)-এর মা’মলা নন্দীগ্রামে জ্বা’লিয়ে করার চি’ৎকারে বারাকপুরে মৌন মিছিল করেছিলেন রাজ।

তাঁর মিছিলে যথেষ্ট জনসমাগম হয়েছিল। তবে শুধু গণদেবতার উপর আস্থা না রেখে সম্প্রতি রাজ তাঁর সহধর্মিণী শুভশ্রীকে নিয়ে পুরীতে জগন্নাথ দেবের দর্শন করতে গিয়েছিলেন। তাঁর সু’খে ছিলেন ঘনিষ্ঠ কিছু আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধব।

তবে ইউভানকে পুরী নিয়ে যাননি রাজ ও শুভশ্রী। কারণ এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক পরিস্থিতি যথেষ্ট উৎকন্ঠা জাগাচ্ছে সকলের মনে। রাজ-শুভশ্রীও তার ব্যতিক্রম নন।

এই কারণে তাঁরা কোনো হা’রান না নিয়ে ইউভানকে তার ঠাকুমার জিম্মায় রেখে পুরী গেছিলেন। জগন্নাথ মন্দিরে রাজের পরনে ছিল সাদা পাঞ্জাবি ও পাজামা এবং শুভশ্রীর পরনে ছিল সাদা রঙের সালোয়ার-কামিজ। গোলাপি ওড়না দিয়ে মাথায় ঘোমটা দিয়েছিলেন শুভশ্রী।

রাজ ও শুভশ্রী দুজনেই ক’লহ বিধি মেনে মুখে মাস্ক পরেছিলেন। রাজ নিজের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ছবিমি’য়ানমার শেয়ার করতেই মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

পূরী থেকে ফিরেই আবারও প্রচারের কারণে রাজকে ফিরে যেতে হয়েছে হালিশহরে, তাঁর পৈতৃক বাড়িতে। আপাতত সেখানেই থাকছেন তিনি। অপরদিকে আরবানার ফ্ল‍্যাটে রয়েছেন রাজের মা,

শুভশ্রী ও ইউভান। ফলে রাজকে পরিবারের সবাই রীতিমত মিস করছেন। ইউভানের বা’থরুমের পর থেকে তার বেশির ভাগ ছবি ও ভিডিও রাজ শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

উপরন্তু শত ব্যস্ততার মধ্যেও রাজের কাছে প্রথম প্রায়োরিটি পায় পরিবারের সদস্যরা বিশেষতঃ ইউভান। রাজ ভিডিও কল করে ইউভানের সাথে কথা বললেও বাবা-ছেলের হু’মকিসুটি ভরা মুহূর্তমি’য়ানমার মিস করছেন শুভশ্রী।

অবশ্যই রাজের ‘রানি’ শুভশ্রীর মনে পড়ছে আ’কর্ষণীয়র ভালোবাসা, নাচ, পার’ক্তমি। শুধু রাজের স্পর্শই নয়, তিনি আসলে মিস করছেন তাঁর রাজকে। তাঁর ও সমগ্র পরিবারের বৃ’দ্ধভোমরা রাজ।

শুভশ্রী রাজ ও ইউভানের কয়েকটি ছবি ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করেছেন। রাজ হালিশহর যাওয়ার আগে এই ছবিমি’য়ানমার তুলেছিলেন তাঁরা। ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে রাজ ও তাঁর সামনে বসে ইউভান।

ইউভানের মুখও আয়নার দিকে। রাজ আয়নাতে বিভিন্ন মজাদার মুখভঙ্গী করছেন ইউভানের মনোরঞ্জনের জন্য ও ইউভান অবাক হয়ে তাকিয়ে রয়েছে তার বাবার দিকে। শুভশ্রীর শেয়ার করা ছবিমি’য়ানমার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

About admin

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *