Breaking News

আকাশ থেকে পড়ল উল্কাপিণ্ড, মুহু’র্তে কোটিপতি যুবক

ইন্দোনেশিয়ার উত্তরাঞ্চলের সুমাত্রা প্রদেশে নিজের বাড়িতে কফিন বানানোর কাজ করছিলেন ৩৩ বছর ব’য়সী জসুয়া হুতাগালুং। ওই সময় আকাশ থেকে একটি উল্কাপিণ্ড পড়ে তার বাড়ির চালে। উল্কার আ’ঘাতে টিনের চালের ওই অংশ ভে’ঙে যায়। উল্কা পড়ে প্রাথমিকভাবে ক্ষ’তিগ্রস্থ হলেও পরে তিনি কোটিপতি হয়েছেন সেই উল্কার বদৌলতে। দরিদ্র থেকে তিনি ১০ কোটির মালিক হয়ে গেছেন।

আকাশ থেকে পড়া উল্কার টুকরোটি প্রায় চার বিলিয়ন বছর আগের। যার বাজারমূ’ল্য ধরা হয়েছে ১০ কোটি টাকা। উল্কাপিণ্ডটি বিক্রি করে জোসুয়া পেয়েছেন ১০ কোটি টাকা। খুবই বিরল প্রজাতির উল্কা পড়েছিল তার ঘরে। যার প্রতি গ্রামের দাম ধরা হয়েছে আটশ ৫৭ ডলার। জোসুয়া বলেছেন, প্রথম যখন এটি পড়ে তখন ব্যাপক গরম ছিল। পরে অবশ্য ঠাণ্ডা হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন : সম্মেলনের ১১ মাসের বেশি সময় পর ১০২ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। নতুন কমিটিতে রাখা হয়েছে আলোচিত-সমালোচিত হাজী সেলিমকে। ঢাকা-৭ আসনের এ সং’সদ সদস্য উপদেষ্টামণ্ডলীর দুই নম্বর সদস্য হয়েছেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ এই কমিটি অনুমোদন দেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

হাজী সেলিম আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বিগত কমিটিতে সদস্য ছিলেন। তার আগে অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। আওয়ামী লীগের কমিটিতে থেকেও ২০১৪ সালের নির্বাচনে দল মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে হা’রিয়ে ঢাকা-৭ আসন থেকে সং’সদ সদস্য হয়েছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন : ক’রোনাভা’ইরাসেের কারণে এখন ঘরব’ন্দি সবাই। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাওয়াও পুরোপুরি নি’ষেধ। তাতে নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে বাড়ছে হতাশা। গত কয়েক দিনের পরিসংখ্যান বলছে এই ক’রোনার কারণে পারিবারিক ক’লহও বেড়ে চলছে।

যদিও এমন ঘ’টনা বাংলাদেশে নতুন নয়। তবে এই সং’কটে সেটা বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা বোধ হয় তারই একটা উদাহরণ টানলেন। নিজের ইনস্টাগ্রামে তারই একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন তিনি।

ভিডিওতে দেখা যায় পূর্ণিমা অঝোরে কাঁদছেন। তার চোখে মুখে রাজ্যের হতাশা। এসব দেখে কেউ একজন তার কাছে জানতে চান এভাবে, কি গো তোর জামাই তোরে এমনে মারলে কেরে? উত্তরে পূর্ণিমা বলেন, কইছি না আমার জামাই দুইটা সিম ব্যবহার করে।

আমি একটা সিম নাম্বার সেভ করছিলাম স্বা’মী ওয়ান, আরেকটা সিম নাম্বার সেভ করছিলাম স্বা’মী টু দিয়ে। শালা না বুইঝা আমারে এই মাইর’ডা দিসি।

About admin

Check Also

পেট চা’লানোর জন্য বিক্রি করেছেন বাড়ির ভিটা, তবুও ব’য়স্কভাতা কার্ড পাননি ৯৮ বছরের বৃ’দ্ধা

আমেনা বেগমের (৯৮) ব’য়স একশ ছুঁইছুঁই। এই ব’য়সে তিনি কানে একেবারেই শুনতে পান না। চোখে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *