২২ বছর ব’য়সী প্রবাসীর বউকে নিয়ে পা’লিয়েছে ১৪ বছরের তরুন!

ব্রা’হ্মণবাড়িয়ার বা’ঞ্ছারামপুর উ’পজে’লার রুপসদী দক্ষিণ বাজারের ক’বিরাজ হোসেন মিয়ার ছেলে ১৪ বছরের ত’রুন হাসান। ভা’লোবাসে প্রতিবেশী দি’নমজুর সফর আলীর ২২ ব’ছরের মে’য়ে খা’দিজা বেগমকে।

খা’দিজার বাবা মনের বি’রুদ্ধে এক প্র’বাসীর সাথে বিয়ে দেয় গত ২ বছর আগে। কিন্তু, বিয়ের পরও তাদের প্রেম-ভা’লোবাসার কোন ঘা’টতি ছিলো না। একে অ’ন্যকে ভা’লবাসতো।

স’ম্প্রতি খাদিজা-হাসানের আগের তোলা প্রে’মের ছবি ফে’সবুকে ভা’ইরাল হয় গোটা উ’পজে’লায়। তখন বা’ধ্য হয়ে খা’দিজার বাবা থা’নায় অ’ভিযোগ করেন। পু’লিশ আসে।

এ’লাকাবাসীর অনুরোধে হা’সানকে শর্ত দিয়ে ছেড়ে দেয় পু’লিশ। শেষে গত বু’ধবার তাদের বিয়ে হয়। বি’য়ের আগে খা’দিজার আগের স্বা’মীকে সে ডি’ভোর্স দেয়।

এ বি’ষয়ে বা’ঞ্ছারামপুর ম’ডেল থা’না সূত্র জানায়, ‘খা’দিজার পিতা সফর আলী লিখিত অ’ভিযোগ করলে আমরা তাকে উ’ত্তক্তের অ’ভিযোগে গ্রে’ফতার করতে গেলে, পরে এ’লাকাবাসী তাদের মধ্যে স’মঝোতার অ’নুরোধে ছেড়ে দেই।

গত ১৮ জু’লাই তাদের বিয়ের পর, মু’ঠোফোনে অসম ব’য়সী দ’ম্পত্তি জানায়, এ’লাকাবাসী আ’মাদের নতুন জী’বনের জন্য দোয়া ক’রবেন। আমরা যেনো সু’খী হই।

হলুদ ড্রেসে সুন্দরী তরুণীর অসাধারন নাচের ভিডিও ভাইরাল, (ভিডিও)

ফেসবুকে অনেক ডান্সের ভিডিও ভাইরাল হয়, অনেক সুন্দর যুবতীরা তাদের প্রতিভা অনুযায়ী তারা ডান্স করে থাকে, কারো ডান্স দর্শকের মনে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

এমন একটি সুন্দরী মেয়ের ডান্সের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, ভিডিওতে দেখা যায় সুন্দরী মেয়েটির হলুদ শাড়ি পড়ে সুন্দর ভ’ঙ্গিমায় অসাধারণ দর্শকের মাঝে উপহার দিচ্ছে।

আরোও পড়ুন..’ভিন্ন ধরনের গল্পে নিশোর স’ঙ্গে মেহজাবীন’, এই সময়ে ইউটিউবে আরফান নিশো ও মেহজাবীন জুটির নাটক ব্যা’পক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ভিন্ন ধরনের গল্প নিয়ে গত বুধবার প্রকাশ হওয়া

‘ভু’লতে পারি না’ নাটকটিতে প্রথম চার দিনের মধ্যেই ২১ লাখেরও বেশি দর্শক দেখে ফে’লেছে। জামাল হোসাইনের রচনায় ও মাসুম শাহরীয়ারের পরিচালনায় নাটকটিতে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো, মেহজাবিন।

নাটকের গল্প, বিত্তবান বাবার একমাত্র মে’য়ে রায়া। কোভিড পেশেন্ট, মৃ*ত্যু পথযাত্রী রায়া‘কে র’ক্তের প্লাজমা দিয়ে জীবন বাঁচায় শিহাব। মেডিক্যাল ফাইলে শিহাবের নাম এবং ফোন নাম্বার দেখে রায়া তাকে ফোন করে। শিহাব ফোন ধরে বলে,

কোথাও ভু’ল হচ্ছে। রায়া যাকে খুজছে সে না। রায়ার তখন স’ন্দে’হ হয়, এ কি সেই শিহাব, অনার্সে পড়বার সময় যে শিহাবকে রায়া চাষার ছেলে বলে অপদস্ত করেছিলো?

গ্রাম থেকে আসা সহজ সরল ছেলে শিহাবকে একদিন রায়া বন্ধুদের সামনে চাষার ছেলে বলে অ’পমান করে। শিহাব এই অ’পমান ভু’লতে পারে না। আর অসু’খের ভ’য়ঙ্কর স্মৃ’তি, অহংকারী রায়াকে বদলে দেয় কিন্তু চাষার ছেলের অভিমান তখন আরো গাঢ় হয়। দুই ছেলে মে’য়ের স্বাভাবিক প্রেমের টান শেষ পর্যন্ত কি ভালোবাসার তী’ব্রতায় রূপ নিতে পারে?

সুপ্রিয় দর্শক আপনারা সুন্দরী মেয়েটির ডান্স উপভোগ করতে থাকুন, আমাদের পোস্ট গুলো আপনাদের কাছে যদি ভালো লাগে থাকে তাহলে আমাদের পোস্ট গুলো লাইক কমেন্ট এবং শেয়ার করুন, আর ভিডিওটি উপভোগ করতে থাকুন…

About tanvir

Check Also

যেভাবে ভেস্তে গেল বিএনপির উদ্যোগ!

২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে দূরে ঠেলতে বিএনপির একটি অংশ অনেকদূর অগ্রসর হলেই দলের অন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *