বন্ধুদের নিয়ে খাওয়ার পর জানলেন মাছটির দাম ২২ কোটি টাকা

একজন জে’লে একটি মাছ ধ’রার পর তা বন্ধুদের নিয়ে খেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি ওই মাছের দাম জানতেন না। পরে যখন তিনি এই মাছের দাম জানতেন পারেন তখন তার রীতিমতো ভিড়মি খাবার জোগাড়। নাইজেরিয়ার ওই জে’লের এমন কাণ্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গেছে। কেননা ওই মাছটির দাম ২৬ লাখ ডলার বা প্রায় ২২ কোটি আড়াই লাখ টাকা।

বিজনেস ইনসাইডার আফ্রিকা জানিয়েছে, ওই জে’লের বাড়ি রিভার্স স্টেটের আন্দোনি এলাকায়। তিনি একটি ব্লু মা’র্লিন ধরেন। পরে নিজের বন্ধুদের স’ঙ্গে সেই মাছটি ভাগ করে খান তিনি। ওই জে’লে সোশ্যাল মিডিয়ায় মাছটির ছবি দেন। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা মাছটিকে চিনতে পারে এবং জানায়, এই মাছের প্রতি পাউন্ডের দাম ৩১ হাজার

৩২৫ ডলার বা প্রায় ২৬ লাখ ২৬ হাজার টাকা।এই প্রজাতির পু’রুষ মাছের চেয়ে না’রী মাছ অনেকটাই বড় হয়। এটা ১৪ ফুট পর্যন্ত লম্বা ‘হতে পারে। আর প্রায় ২ হাজার পাউন্ড পর্যন্ত ওজন ‘হতে পারে মাছটির। তবে মাছটির গড়পড়তা আকার ১১ ফুট হয়।

আর এটির ওজন হয় ২০০ থেকে ৪০০ পাউন্ড। যদিও এই মাছ সাধারণত খাওয়া হয় না। কারণ এটাতে প্রচুর পরিমাণ পারদ এবং অন্যান্য দূষিত পদার্থ থাকে। তবে জাপানে এই মাছের বেশ চা’হিদা রয়েছে। সেখানে এই মাছের মাংস ‘সাশিমি’ হিসেবে কাঁচা খেতে দেয়া হয়।

তরুণীর স’ঙ্গ পেতে ২৭ লাখ টাকা দেন ৮০ বছরের বৃ’দ্ধ!

তরুণী মে’য়েটিকে দেখেই আকৃ’ষ্ট হন মোজাম্মেলন হোসেন। তার ব’য়স ৮০ ছুঁই ছুঁই। স্ত্রী আছেন। তারও ব’য়স হয়েছে। এই অবস্থায়ও তরুণীর কাছে ছুটে যান তিনি। ওই তরুণীর লেখাপড়াসহ সকল ব্যয় বহন করবেন বৃ’দ্ধ মোজাম্মেল। বিনিময়ে মোজাম্মেলকে দিতে হবে অন্তঃরঙ্গ মুহূর্ত। তরুণী রাজি।

প্রথম দেখাতেই ওই তরুণীর হাতে কয়েক হাজার টাকা দিয়ে কিছু একটা কিনে নিতে বলেন ধ’নাঢ্য মোজাম্মেল। ধানমন্ডিসহ রাজধানীর বিভিন্নস্থানে রয়েছে মোজাম্মেলের একাধিক বহুতল বাড়ি।

প্রতি মাসে আয় হয় বিপুল টাকা। স’ন্তানরা থাকেন যুক্তরাজ্যে। স্ত্রীও থাকেন সেখানে। মাঝে-মধ্যে দেশে আসেন। সম্পদের জন্য ঢাকায় থাকতে হয় বৃ’দ্ধ মোজাম্মেলকে।

মোজাম্মেল (ছদ্মনাম) ভাবতেই পারেননি স’ঙ্গী হিসেবে এমন সুন্দরী কম ব’য়সী একটি মে’য়ে পাবেন তিনি। প্রথম দেখাতেই জানিয়ে দেন মে’য়েটিকে তার বেশ ভালো লেগেছে। কাল থেকেই এই তরুণীকে তার ফ্ল্যাটে চান তিনি। এই মে’য়েকে পেতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে এই বৃ’দ্ধকে। ঘ’টনার শুরু ২০২০ সালের জানুয়ারিতে। তার ধানমন্ডির বাসায় ভাড়াটে হিসেবে উঠেন রিপা ও রিপার স্বা’মী।

রিপার সংসারে অর্থক’ষ্ট। সময়মতো ভাড়া দিতে পারেন না। এরমধ্যেই বাড়িওয়ালা মোজাম্মেলের নজর পড়ে ওই না’রীর ও’পর। দেখা সাক্ষাত হলেই গা ঘেষে দাঁড়িয়ে কথা বলেন। কথা বলতে বলতে শ’রীরে হাত দেন। নিরবে সহ্য করেন এই না’রী। রিপা জানান, তিন মাসের ভাড়ার টাকা বাকি ছিল। বা’ধ্য হয়েই অনেক কিছু সহ্য করতেন।

About tanvir

Check Also

ভো’ট চা’ইতে গিয়ে গ;ণ’ধ;র্ষ;ণে;র শি’কার ম’হিলা প্রা’র্থী

প’টুয়াখালীর মি’র্জাগঞ্জে সংরক্ষিত এক না’রী কা’উ’ন্সিলর প্রার্থীকে (৪৫) গ;ণধ;র্ষ;ণের অ;ভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *