সুদের টাকা না দেয়ায় না’রীকে গাছে বেঁ”ধে নি”র্যা’ত’ন

কক্সবাজারের চকরিয়ায় আসল সু’দের টাকা প’রি’শোধ করতে না পা’রায় এক গৃ’হব’ধূকে গাছের স’ঙ্গে বেঁ’’ধে নি’র্যা’ত’নের অ’ভি’যো’গ উ’ঠে’ছে শওকত ওসমান নামের এক যু’ব’কের বি’রু’দ্ধে। ওই না’রীকে নি’’র্যা’ত’নের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভা’ই’রাল হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) দুপুরে চকরিয়া উপজে’লার বরইতলী ইউনিয়নের মোরাপাড়ার হাপানিয়াকা’টা এলাকায় এ ঘ’ট’না ঘ’টে।

এ ঘট’নায় বুধবার (১৭ মার্চ) শওকত ওসমানের বাবা জহির আহম’দকে জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য আ’ট’ক করেছে পু’লিশ। একইস’ঙ্গে ভু’ক্তভো’গী না’রীকে পু’লিশ হেফা’জতে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ভাই’রাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ওই না’রীকে পরনের শাড়ির আঁ’চ’ল দিয়ে একটি গাছের স’ঙ্গে বেঁ’ধে রাখেন সু’দ কা’র’বারি শওকত ওসমান। এ সময় তিনি বাঁধ’ন খুলে দিতে বলেন।

শওকত উ’ল্টো কি’’ল-ঘু’’ষি মা’’রে’ন। আরেকজন ব’য়স্ক না’রী এসে একটি লা’’ঠি দিয়ে ওই না’রীকে খোঁ’’চা দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে শওকত গৃ’হব’ধূর শ্লী’’লতা’হা’নির চেষ্টা করেন এবং চু’লের মু’’টি ধ’’রে গাছের স’ঙ্গে বাঁ’ধে’ন। এ সময় স্থানীয় বেশ কয়েকজন না’রী তাকে উ’দ্ধার করতে গেলে তাদেরকেও ধা’’ক্কা দিয়ে ফে’লে দেন শওকত ওসমান।

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার নিয়াজুল ইসলাম বাদল বলেন, ‘কয়েক মাস আগে ওই গৃ’হব’ধূ তার স্বা’মীর চিকিৎসার জন্য শওকত ওসমানের কাছ থেকে সু’দের ও’পর চার হাজার টাকা ধার নেন। এরইমধ্যে তিনি সু’দ ও আ’স’লসহ আট হাজার টাকা পরি’শো’ধও করেন।

কিন্তু মঙ্গলবার দুপুরের দিকে শওকত ওসমান আরও দুই হাজার টাকা দাবি করেন। ওই টাকা বৃহস্পতিবার দেয়ার প্র’তিশ্রু’তি দিলেও তা মা’ন’তে নারাজ শওকত। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কা’টাকা’টি হয়। এক পর্যায়ে শওকত ওসমান ওই না’রীকে একটি গাছের স’ঙ্গে প’র’নে থাকা শা’ড়ি দিয়ে বেঁ’ধে মা’’র’ধ’র করেন এবং অ’মা’ন’বি’ক নি’র্যা’ত’ন চা’লা’ন।’

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল আহম’দ সিকদার বলেন, ‘ঘট’নাটি জানার পর ঘ’টনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এলাকার লোকজনের স’ঙ্গে কথা বলে ঘট’নার সত্যতা পাওয়া গেছে। বি’ষয়টি উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ওসিকে জানানো হয়েছে। আমি চাই এ ঘ’টনার একটি দৃ’ষ্টা’ন্তমূ’লক শা’’স্তি হোক।’

চকরিয়া থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্ম’দ যুবায়ের বলেন, ‘ঘ’টনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেখার পরপরই পু’লিশ ফোর্স ঘট’নাস্থলে পাঠাই। অ’ভিযু’ক্ত শওকতকে না পাওয়ায় তার বাবা জহির আহম’দকে জি’জ্ঞা’সাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘ’ট’নায় মা’মলা দা’য়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

হাত-পা অ’বশ হয়ে যাওয়া যেসব মা’রা’ত্মক রো’গের ল’ক্ষণ!

অনেকেরই হাত বা পায়ে অবশ হয়ে যাওয়ার স’মস্যা হয়ে থাকে। তবে এই বি’ষয়টি বেশিরভাগ মানুষই গু’রুত্ব দেয়া প্রয়োজন মনে করেন না। আর এতেই হয় বি’পদ। কারণ হাত-পা অবশ হয়ে যাওয়া কোনো সাধারণ লক্ষণ নয়, এই স’মস্যা অনেক ক’ঠিন রো’গের ই’ঙ্গিত দেয়।

মূ’লত বাহু বা কবজির কোনো একটি স্নায়ু বা একগুচ্ছ স্নায়ু যদি সংকুচিত হয় এবং ক্ষ’তিগ্রস্থ হয় তাহলে হাত অবশ হয়ে যাওয়ার অনুভূতি হয়। এছাড়াও ডায়াবেটিসের মত রো’গের কারণে পেরিফেরাল স্নায়ু ক্ষ’তিগ্রস্থ হলে, আঘা’তের ফলে, সং’ক্রমণ এবং বি’ষাক্ত পদার্থের সংস্প’র্শের কারণেও হাত অবশ হওয়ার অনুভূতি হতে পারে।

অপর দিকে পায়ের পাতা অবশ হওয়ার ক্ষেত্রে জ্বলুনিসহ সুঁই দিয়ে খোঁচানোর মত অনুভূতি হয়। মেরুদন্ডের নিচের অংশের স্নায়ুমূ’লে য’ন্ত্রণা হলে এমন হতে পারে। এ ধ’রনের অনুভূতিগুলো বিক্ষি’প্তভাবে বা সরাসরি হয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কম সময় স্থা’য়ী হয়।

যদি হাতের উপর ভর দিয়ে দীর্ঘক্ষণ ঘুমিয়ে থাকেন, পায়ের উপর পা তুলে বসে থাকেন অথবা নড়াচড়া না করে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকেন তাহলে অবশ হওয়ার অনুভূতি হয়। তবে যদি বারবার এমন অনুভূতি হয় তাহলে দ্রু’তই চিকি’ৎসকের কাছে যাওয়া উচিত। কারণ জটিল কোনো স্বা’স্থ্য স’মস্যার কারণেও এমনটি হতে পারে। চলুন তবে জে’নে নেয়া যাক সেই কারণগুলো স’ম্পর্কে-

ডায়াবেটিস

অনেক মানুষই ডায়াবেটিসে ভুগে থাকেন। পেরিফেরাল স্নায়ু রো’গের এটি একটি সাধারণ কারণ। এর ফলে পায়ের পাতা অবশ হওয়ার লক্ষণ দেখা যায়, যা আস্তে আস্তে উপরে ওঠে।

সিস্টেমিক ডিজিজ

About tanvir

Check Also

ভো’ট চা’ইতে গিয়ে গ;ণ’ধ;র্ষ;ণে;র শি’কার ম’হিলা প্রা’র্থী

প’টুয়াখালীর মি’র্জাগঞ্জে সংরক্ষিত এক না’রী কা’উ’ন্সিলর প্রার্থীকে (৪৫) গ;ণধ;র্ষ;ণের অ;ভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *