ফের মহাসমাবেশের ডাক হেফাজতের

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজে’লার হবিপুর ইউনিয়নের হিন্দু অধ্যুষিত নোয়াগাঁও গ্রামে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা মা’ওলানা মামুনুল হকের সম’র্থকদের হা’ম’লা লু’টপাট ও ভাং’চুরের ঘ’টনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে মহাসমাবেশ ডেকেছে হেফাজত। আগামী ২১ মা’র্চ জামালগঞ্জ হেলিপ্যাড মাঠে সমাবেশ হবে।

মামুনুলের অনুসারীদের তা’ণ্ড’বে এখনো আ’তঙ্কিত হিন্দু অধ্যুষিত নোয়াগাঁও গ্রামবাসী। অ’প্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে গ্রামে অস্থায়ী রেব ও পু’লিশ ক্যাম্প বসানো হয়েছে। এরই মাঝে আবারও হেফাজতের সমাবেশের ডাকে সা’ম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিঘ্নিত হওয়ার আশ’ঙ্কা দেখা দিয়েছে।

এদিকে সমাবেশের পোস্টারে না জানিয়ে জামালগঞ্জ উপজে’লা আওয়ামী লীগের সভাপতির নাম ব্যবহার করায় তিনি বৃহস্পতিবার (১৮ মা’র্চ) রাতে থা’নায় জি’ডি করেছেন।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য বি’রোধী আ’ন্দোলনের নেতা মা’ওলানা মামুনুল হকের সম’র্থকরা ১৭ মা’র্চ বুধবার নোয়াগাঁও গ্রামের ৮৮ টি বাড়িতে হা’ম’লা, লু’টপাট ও ভাং’চুর করেছে।

এসময় গ্রামের ৫ টি মন্দির ভাং’চুর করা হয়। নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক তরুণের ফেসবুক আইডি থেকে মা’ওলানা মামনুল হককে কটাক্ষ করে কথিত স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়ায় বুধবার সকাল ৯ টায় এই তা’ণ্ড’ব চা’লানো হয়।

এর আগে ১৫ মা’র্চ সুনামগঞ্জের দিরাই স্টেডিয়ামে হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাস’চিব মা’ওলানা মামুনুল হক বক্তব্য দেন। এসময় ধ’র্মীয় উস্কানীমূ’লক বক্তব্য দিয়েছিলেন মামুনুল হকসহ হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা।

বু’লেটের য’ন্ত্রণায় হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন সোহেল, মে’য়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

সেদিনের বু’লেট ভে’তরে ঢুকে বাজে ইনফেকশন করে ফে’লেছে ‘- বিএনপির যুগ্ম মহাস’চিব ও ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের মে’য়ে জান্নাতুল ইলমি সূচনার ফেসবুক স্ট্যাটাস এটি। হাসপাতালে বেডে বু’লেটের য’ন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন এই বিএনপি নেতা। পাশে বসা দুই মে’য়ে বাবার ক’ষ্টের কথা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক আবেগঘন স্ট্যাটাসে এ কথা জানিয়েছেন।

বিএনপি যুগ্ম মহাস’চিব হাবিব উন নবী খান সোহেল বর্তমানে রাজধানীর হলি ফ্যামেলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির কর্মসূচিতে পু’লিশের হা’মলায় আ’হত হন তিনি। সোহেলের মে’য়ের দাবি, তার বাবা গু’লি খেয়েছেন। এবারের বু’লেটটি আগের বু’লেটের জায়গায় এসে লেগেছে। এতে সোহেলের শ’রীরে ইনফেকশন হয়ে গেছে।

বাবার য’ন্ত্রণায় হৃদয়ে র’ক্তক্ষরণ হয়েছে সূচনা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানে অধ্যয়নরত ইলমি গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে হা’মলা করার জন্য প্রশাসনকে দুষেছেন। সেই স’ঙ্গে হুশিয়ার করেছেন, তার বাবার কিছু হলে দায় প্রশাসনকে নিতে হবে। ইলমির স্ট্যাটাসটি পাঠকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হলো- ‘রাত ঘনিয়ে আসছে.. ঘুমিয়ে পড়েছে ক্লান্ত বাবা।

প্রেস ক্লাবের সেই ভ’য়াবহ সং’ঘর্ষে সবাইকে পু’লিশি হা’মলা থেকে বাঁচাতে সামনে বুক পেতে দাঁড়িয়ে ছিল যে ৬ ফুট মানুষটি। সাহস, ক্ষিপ্র বু’লেটে ছাড়খার হয়ে গেছে তার পিঠ… কি অদ্ভূত, বাবা বুঝতেও পারেনি। তাড়াহুড়াতে কোনোরকম সেলাই করে দিয়েছিল সেদিন ডাক্তাররা। কিন্তু প্রতিদিন র’ক্তক্ষরণ হতো, হাসপাতালে ড্রেসিং করে বাবা মিটিং এ যেতেন, তারপর আবার র’ক্তেমাখা শার্ট নিয়ে ঘরে ফিরতো।

আমাদের স’ন্দে’হ হলো, কেনো র’ক্ত বন্ধ হচ্ছে না। পরে জানা গেল, সেদিনের বু’লেট ভে’তরে গিয়ে বাজে ইনফেকশন করে ফে’লেছে … এখন বাবা হাসপাতালে ভর্তি, অপারেশন করে তা বের করেছে। কিন্তু সেলাই করা যাচ্ছে না। কারণ ক্ষ’ত শুকাতে অনেক সময় লাগবে, আর বাবার ডায়াবেটিস।

তাই কা’টা পিঠটা খোলা-ই আছে, ভে’তরে গজ দেয়া…। এ প্রথম ব্য’থায়-য’ন্ত্রণায় আমরা আমাদের বাবাকে প্রচণ্ড ক’ষ্ট পেতে দেখেছি, মুখে তবু হাসি। আগের গু’লি খাওয়া জায়গাতেই আবার ক্ষ’ত। আমাদের দুইবোনের হৃদয়ের র’ক্তক্ষরণ যদি দেখানো যেত… মা সারারাত নিষ্পলক বসে থাকেন বাবার পাশে।

কোনো ক্ষ’তি হলে দায়ভার অবশ্যই প্রশাসনের.. সবাইকে রক্ষা করতে গিয়ে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের সে মেধাবী তরুণ তার সারাজীবন জাতীয়তাবাদকে উৎসর্গ করে গেল… আজও সে আপনাদের কথা ভাবে, দেশকে নিয়ে ভাবে।

সবাই আমাদের বাবার জন্য দোয়া করবেন। যারা সোহেলের সুস্থতা কামনা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে ভোলেননি সূচন। লিখেছেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যারা ক’ষ্ট করে আসছেন দেখতে, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। কাঁচা অপারেশনে ইনফেকশন হবার সম্ভাবনা আছে, তাই কাছে যেতে দিতে পারছিনা বলে দু:খিত। এর আগে ২৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপির কর্মসূচিতে হা’মলার দিন আ’হত সোহেলের একটি ছবি দিয়ে নি’ন্দা জানান সূচনা।

সেদিন ফেসবুকে স্ট্যাটাসে লেখেন- ‘আর কত র’ক্ত ঝরালে আমাদের কথা বলতে দেবে? কত লা’শের বিনিময়ে একটু স্বাধীন অনুভূতি পাবো? সবাইকে পরিবারসহ এক কাতারে দাঁড় করিয়ে মে’রে ফে’লেন আপনারা, এটাই বাকি এখন … বাবা, আমি জানি তুমি আজ’ন্ম বীর। তোমার মনোবল আকাশছোঁয়া। তুমি এক ছয়ফুট ইতিহাস। শুধু এটুকুই জানতে চাচ্ছে আমাদের দুইবোনের ছোট্ট মন … ‘ঠিক আছো?’ প্রেসক্লাবের সামনে র’ণক্ষেত্র…।’

About tanvir

Check Also

ভো’ট চা’ইতে গিয়ে গ;ণ’ধ;র্ষ;ণে;র শি’কার ম’হিলা প্রা’র্থী

প’টুয়াখালীর মি’র্জাগঞ্জে সংরক্ষিত এক না’রী কা’উ’ন্সিলর প্রার্থীকে (৪৫) গ;ণধ;র্ষ;ণের অ;ভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *